Voice of SYLHET | logo

১৪ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ২৮শে জুন, ২০২২ ইং

ভর্তির সুযোগ চেয়ে চবির মেধা তালিকার সেই শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

প্রকাশিত : November 04, 2019, 22:07

ভর্তির সুযোগ চেয়ে চবির মেধা তালিকার সেই শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

নিউজ ডেস্ক:

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ দেওয়ার দাবিতে মানববন্ধন করেছেন এবছর উচ্চ মাধ্যমিকে মানোন্নয়ন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে বিভিন্ন ইউনিটের মেধা তালিকায় স্থান পাওয়া ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা।

সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার পাদদেশে তারা এ মানববন্ধন করেন।

মানববন্ধনে ‘এ’ ইউনিটের মেধাতালিকায় ২২৭তম স্থান পাওয়া সুমাইয়া মেহরাজ বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েব সাইট থেকে জানতে পারি যারা গতবছর আবেদনের যোগ্য ছিল, তারা এ বছর আবেদনের অযোগ্য হিসেবে গণ্য হবে।

“আবেদনের অযোগ্য হলে আমাদের কেন ভর্তি পরীক্ষায় বসতে দেওয়া হয়েছে? কেন মেধা তালিকায় আমাদের নাম রাখা হয়েছে?”

তিনি বলেন, যেহেতু ভর্তি পরীক্ষায় মেধা তালিকায় আমাদের নাম আছে, সেহেতু আমারা আবেদনের যোগ্য ছিলাম। আমাদের মেধাক্রম অনুযায়ী ভর্তি করা হোক।”

মানববন্ধনে ‘বি’ ইউনিটের মেধাতালিকায় ৮৮১তম স্থান পাওয়া তানজিম আদহাম বলেন, “এ বছরের ভর্তি বিজ্ঞপ্তিতে স্পষ্ট করে বলা হয়নি যারা ২০১৮ সালে ভর্তি পরীক্ষায় যোগ্য ছিল তারা এবছর ভর্তি পরীক্ষায় আবেদনের অযোগ্য।

“ভর্তি পরীক্ষায় আমরা আবেদনের অযোগ্য হলে কেন আমাদের নাম মেধা তালিকায় আসছে। মেধা তালিকায় নাম থাকায় আমরা অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দেইনি। এখন কোথায় ভর্তি হব?”

শিক্ষার্থীরা বলছেন, ভর্তির বিজ্ঞপ্তিতে নতুন চালু করা নিয়ম ‘সুস্পষ্ট’ না থাকায় তারা বিভ্রান্ত হয়ে ভর্তির জন্য আবেদন করেছেন। অযোগ্য হলে তাদের আবেদন বাতিল করা হল না কেন?

তবে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বলছে, এবার ভর্তির ক্ষেত্রে উচ্চ মাধ্যমিকে মানোন্নয়ন পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মধ্যে শুধু গতবার আবেদনে অযোগ্য শিক্ষার্থীরাই যে যোগ্য বিবেচিত হবেন, সে বিষয়টি ভর্তির বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছিল। ফলে গতবারের যোগ্যরা এবার ভর্তি পরীক্ষা দিয়ে মেধা তালিকায় এলেও ভর্তি হতে পারবেন না।

মানববন্ধনে ‘বি’ ইউনিটের মেধাতালিকায় ৮৭তম স্থান অধিকারী ইমাম হোসেন হৃদয় বলেন, “কর্তৃপক্ষের নিকট আমাদের দাবি, আমাদের নিঃশর্তে ভর্তি করা হোক। আমাদের যদি মেধাক্রমানুসারে ভর্তি করা না হয়, তাহলে আমরা পরবর্তীতে কঠোর আন্দোলন করব।”

এসময় ভর্তিচ্ছুদেরর হাতে ‘কাঁদতে আসিনি, যোগ্যতা নিয়ে ভর্তি হতে এসেছি’, ‘গতবছরের যোগ্যরা এবার মান উন্নয়ন দিলে ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবে না সার্কুলারে উল্লেখ নাই’, ‘ভুল আইসিটি সেলের, ভবিষ্যৎ নষ্ট আমাদের কেন?’, ‘আমাদের মেধা, পরিশ্রম, সময়, টাকার কেন মূল্য নেই?, ‘চবিতে হয় পড়ব, না হয় মরব’, ‘একটি বছর বইয়ের মধ্যে মুখ গুঁজিয়ে ছিলাম, এই দিনটি দেখার জন্য নয়’, ‘হয় ভর্তি নিন না হয় চবির মাটিতে কবর খোঁড়ার প্রস্তুতি নিন’ লেখা সংবলিত প্ল্যাকার্ড দেখা যায়।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর প্রণব মিত্র চৌধুরী বিডিনিউজ টোয়ান্টিফোর ডটকমকে বলেন, “ভর্তিচ্ছুরা যুগ্মভাবে একটি আবেদন নিয়ে আমাদের কাছে এসেছিল। আমরা বিষয়টি ডিনদের জানানোর পর তারা ভর্তিচ্ছুদের আগামীকাল (মঙ্গলবার) আলাদাভাবে আবেদন করতে বলেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

সংবাদটি পড়া হয়েছে 215 বার

যোগাযোগ

অফিসঃ-

উদ্যম-৬, লামাবাজার, সিলেট,

ফোনঃ 01727765557

voiceofsylhet19@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ

সম্পাদক মন্ডলি

ভয়েস অফ সিলেট ডটকম কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।