Voice of SYLHET | logo

১১ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ২৫শে মে, ২০২২ ইং

বিল নিয়ে মারামারি–খুনোখুনির এক গ্রাম

প্রকাশিত : October 17, 2019, 15:43

বিল নিয়ে মারামারি–খুনোখুনির এক গ্রাম

নিউজ ডেস্ক:

শিশু তুহিনের ছোট দেহটির ওপর পৈশাচিকতা নাড়া দিয়েছে দেশের মানুষকে। তবে সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার কেজাউড়া গ্রামে মারামারি, মামলা, খুনোখুনি নতুন কিছু নয়। হাওরপারের এই গ্রামের আটটি বিলের দখল নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে বিবাদ দীর্ঘদিনের।

গত ১৮ বছরে দুই পক্ষের মধ্যে চারটি হত্যাকাণ্ডের তথ্য পাওয়া যায়। মারামারি হয় প্রায়ই। এসব নিয়ে মামলাও হয়েছে প্রচুর। সংঘর্ষ–মারামারিতে ত্যক্ত–বিরক্ত গ্রামের বেশির ভাগ মানুষ, অনেকে সর্বস্বান্ত মামলায়। ওই বিবাদের জেরেই প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে গত রোববার রাতে শিশু তুহিনকে তারই বাবা–চাচারা পৈশাচিক কায়দায় হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রাখেন বলে জানিয়েছেন পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন।

দিরাইয়ের কালিয়াকোটা হাওরের পূর্ব পারে কেজাউড়া গ্রাম। চার শর মতো পরিবারের বাস। গ্রামের আটটি বিল নিয়ে আবদুল মছব্বিরের পরিবারের সঙ্গে সাবেক ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেনের লোকজনের দ্বন্দ্ব। মছব্বিরের ভাই নিহত শিশু তুহিনের বাবা আবদুল বাছির।

জেলার পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান জানালেন, কেজাউড়া গ্রামের বিল নিয়ে মারামারির সাত–আটটি মামলা তদন্তাধীন।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, ২০১৫ সালের অক্টোবর মাসের শুরুতে বিল নিয়ে আনোয়ার মেম্বার ও মছব্বিরের পরিবারের মধ্যে মারামারি হয়। এরপর ৮ অক্টোবর সন্ধ্যায় গ্রামের রাস্তার পাশে রক্তাক্ত অবস্থায় মছব্বিরের এক ভাইয়ের ছেলের স্ত্রী নিলুফা বেগমের লাশ পাওয়া যায়। তাঁর শরীরে ধারালো অস্ত্রের ৩১টি আঘাত ছিল। সঙ্গে সঙ্গে বাছিরের পরিবারের লোকজন আনোয়ার মেম্বারের বাড়িঘরে হামলা, লুটপাট চালায়। এরপর মামলা হয় আনোয়ারসহ তাঁর ১৬ জন আত্মীয়ের বিরুদ্ধে।

এর আগে ২০০৮ গ্রামে মছব্বিরদের এক আত্মীয় জবর আলীকে হত্যার অভিযোগে আনোয়ার মেম্বারের লোকজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়। ওই মামলার আসামি এলাইছ মিয়া বলেন, জবর আলী নিজের ঘরে হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। পরে তাঁর লোকজনই তাঁর লাশ হাওরে নিয়ে কাদাপানিতে পুঁতে রেখে মামলা করেন। এর আগে ২০০১ সালে গ্রামে মুজিব মিয়া নামের এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এই মামলার অন্যতম আসামি তুহিনের বাবা আবদুল বাছির

 সূত্র:প্রথম আলো

সংবাদটি শেয়ার করুন

সংবাদটি পড়া হয়েছে 280 বার

যোগাযোগ

অফিসঃ-

উদ্যম-৬, লামাবাজার, সিলেট,

ফোনঃ 01727765557

voiceofsylhet19@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ

সম্পাদক মন্ডলি

ভয়েস অফ সিলেট ডটকম কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।