Voice of SYLHET | logo

৭ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ২১শে মে, ২০২২ ইং

বাখাটে স্টাইলে চুল কাটতে মানা করা সেই ওসি এখন গোয়াইনঘাট থানায়, অপরাধ দমনে আপষহীন

প্রকাশিত : August 23, 2019, 16:46

বাখাটে স্টাইলে চুল কাটতে মানা করা সেই ওসি এখন গোয়াইনঘাট থানায়, অপরাধ দমনে আপষহীন

 

আমির উদ্দিন, বিশেষ প্রতিনিধি :—
সিলেটের কানাইঘাট থানার সাবেক অফিসার ইনচার্জ আব্দুল আহাদ, জুলাই মাসের শেষের দিকে কানাইঘাটের সেলুন মালিকদের ডেকে থানায় নিয়ে বখাটে স্টাইলে চুল না কাটতে দিক নির্দেশনা প্রদানের মাধ্যমে সারা দেশব্যাপী আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়েছিলেন তিনি, প্রশাসনিক বিধি অনুযায়ী জেলা পুলিশ সুপার ফরিদ এর অর্ডারের মধ্য দিয়ে আগষ্টের প্রথমদিকে গোয়াইনঘাট থানায় জয়েন্ট করেন তিনি।
সম্প্রীতির নগরী খ্যাত গোয়াইনঘাটের অপরাধ দমনে কাজ করে যাচ্ছেন জীরো ট্রলারেসের ন্যায় ।এ পর্যন্ত অগনিত সাজাপ্রাপ্ত আসামি, মাদক সেবী, মাদক ব্যবসায়ী কে গ্রেফতারের মাধ্যমে গোয়াইনঘাটের জনতার হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন তিনি। রাজনৈতিক প্রতিহিংসা মুক্ত এই গোয়াইনঘাটের আইন শৃঙ্খলা রক্ষা ও জনজীবনের মান উন্নয়নে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন গোয়াইনঘাট থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল আহাদ।তিনি যোগদান করার পর থেকে গোয়াইনঘাট থানায় এখন অপরাধের অনেকটাই চেহারা পাল্টে গেছে ধারণা করতেছে সাধারণ জনগণ।গোয়াইনঘাট থানা পুলিশ সাধারণ জনগণের বরাত দিয়ে জানা যায়,ওসি আব্দুল আহাদ একজন সৎ ও সাহসী যোগ্য অফিসার।
অপরাধ দমনের গোয়াইনঘাট থানাকে মাদক মুক্ত করার প্রত্যয়ে পুলিশ নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।মাদকের সাথে জড়িতদের সমাজ থেকে নির্মুল করা হবে। ইতিমধ্যে মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সেবনকারীদের তালিকা করা হয়েছে। মাদকের ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্সের ভূমিকা নিয়েছে পুলিশ।মাদকের সাথে জড়িত কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।মাদক সেবী ও মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে পুলিশি অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এই থানায় তিনি যোগদানের পর থেকে এ পর্যন্ত বিভিন্ন সময় মাদকদ্রব্য বিক্রি,সেবন, ছিনতাই,ডাকাতি, হত্যা, অপহরন , ইভটিজিং ও সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি সহ বিভিন্ন মামলার শতাধিক আসামি গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনেছেন।
উনার রয়েছে যেমন দক্ষতা সাহসিকতা তেমনি রয়েছে সততা। শুধু তাই নয় তিনি তার সাথে কর্তব্যরত প্রতিটি কর্মকর্তাদের নিয়ে মাদক সেবন ও বিক্রয়কারিদের বিরুদ্ধে নিয়েছেন কঠিন পদক্ষেপ। মাদক কে না বলুন।মাদক মরণ নেশা বাঁচতে চাইলে মাদক ছাড়, নতুন এ সোগানকে সামনে রেখে গোয়াইনঘাট থানার প্রতিটি ইউনিয়ন গুলিতে মাদক মুক্ত রাখার প্রত্যয় নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন।
গোয়াইনঘাট উপজেলায় ৯টি ইউনিয়নের মধ্যে বেশিরভাগ জনগণ পুলিশের সেবা পাচ্ছে।প্রতিটি এলাকায় রয়েছে নিরাপত্তার জন্য পুলিশের টহল টিম। প্রতিটি পাড়া গ্রামে দেওয়ালে টাঙ্গানো হয়েছে ডিউটি অফিসার ও ওসির নাম্বার সহ স্টিকার।যেন সাধারণ জনগণ যে কোন মুহুর্তে প্রয়োজনের জন্য পুলিশকে যে কোন তথ্য দিতে পারে।
আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে দিনরাত শ্রম দিয়ে যাচ্ছে পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা ।যার রুপকার ওসি আব্দুল আহাদ ।তাছাড়াও সামগ্রিক প্রচেষ্টায় এই গোয়াইনঘাট কে এগিয়ে নিতে ইতিমধ্যে উপজেলা পরিষদ, উপজেলা প্রশাসন, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদ, গোয়াইনঘাট প্রেসক্লাব, সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সভা সেমিনার করেছেন তিনি। তাছাড়াও শত ব্যস্ততা উপেক্ষা করে বিভিন্ন খবরাখবর নিউজ সর্বক্ষণ আপডেট দিচ্ছেন তার নিজ ফেইসবুক আইডিতে, সাংবাদিকদের করা নিউজ করতেছেন শেয়ার, কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতেছে অনলাইন এক্টিভিটিস ও গন মাধ্যম কর্মীদের প্রতি। তাছাড়াও মন্ত্রী ইমরান আহমদ এর প্রটোকলে তাহার তৎপরতা ছিলো লক্ষনীয়, এমনকি প্রবাসীদের প্রতি রয়েছে তাহার বিরল আন্তরিকতা ও সৌজন্য বোধ। এ বিষয়ে জানতে চাইলে গোয়াইনঘাট প্রবাসী পরিষদের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা ও লন্ডন প্রবাসী সাবেক অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা মোহাম্মদ ইউসুফ জানান আমি ব্যক্তিগতভাবে উনাকে চিনিনা তবে অনলাইনের বিভিন্ন নিউজ পোর্টাল ও ফেইসবুকে আমজনতা উনার প্রতি যে কৃতজ্ঞতা স্বীকার করতেছে, নিঃসন্দেহে তিনি একজন ভালো মানুষই নন ভালো অফিসার ও বটে। আমরা সকল প্রবাসীদের পক্ষ থেকে তাহার সার্বিক সফলতা কামনা করছি ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

সংবাদটি পড়া হয়েছে 974 বার

যোগাযোগ

অফিসঃ-

উদ্যম-৬, লামাবাজার, সিলেট,

ফোনঃ 01727765557

voiceofsylhet19@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ

সম্পাদক মন্ডলি

ভয়েস অফ সিলেট ডটকম কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।