Voice of SYLHET | logo

২২শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ৬ই জুলাই, ২০২২ ইং

একজন হাবিবুল বাশারঃদ্যা ক্যাপ্টেন

প্রকাশিত : August 17, 2019, 05:43

একজন হাবিবুল বাশারঃদ্যা ক্যাপ্টেন

শেখ রিদওয়ান হোসাইন।

কাজী হাবিবুল বাশার। বাংলাদেশ ক্রিকেটে অত্যন্ত পরিচিত একটা নাম। হবেই না কেনো,বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক তিনি।বাংলাদেশের ক্রিকেট যে কয়জনের হাত ধরেই উপরে উঠেছে তার অন্যতম এক নাম হাবিবুল বাশার।ডেভ হোয়ায়টমোরের ম্যানেজারশিপে তার অধিনায়কত্ব শুরু হয় এবং তিনি হয়ে উঠেন তখনকার বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল অধিনায়ক। নিজের পারফরম্যান্স দিয়ে দলের অনেক জয়ে অবদান রাখেন যখন বাংলাদেশের একটি জয় পাওয়া ছিলো একটি সোনার হরিণ পাওয়ার থেকেও বেশি। তার অধিনায়কত্বেই, বাংলাদেশ হারায় অস্ট্রেলিয়া,ভারত,শ্রীলঙ্কা ও সাউথ আফ্রিকার মতো দলকে প্রথম বারের মতো(ওডিআইতে)।

১৭ আগষ্ট ১৯৭২ সালে কুষ্টিয়া জেলার নাগাকান্দায় দেশের এই ক্রিকেট নক্ষত্রের জন্ম। দলে মূল দায়িত্ব ছিলো টপ-অর্ডার ব্যাটসম্যানের। ডান হাতি এই ব্যাটসম্যান মাঝে মধ্যে হাতও ঘুরাতেন অফব্রেক হিসেবে।

ওডিআইতে অভিষেক হয় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১৯৯৫ সালের ৫ই এপ্রিল। ওডিআইতে তার রান সংখ্যা-
ম্যাচ- ১১১
রান- ২১৬৮
গড়- ২১.৬৮
অর্ধশতক- ১৪টি
সর্বোচ্চ রান- ৭৮

ওডিআইপরিসংখ্যান একেবারে সাদামাটা হলেও দলে তার অবদান ছিলো অতুলনীয়। তখনকার ব্যাটিং লাইন-আপে আস্থার প্রতীক ছিলেন তিনি।

টেস্টে তার অভিষেক হয় ১০ নভেম্বর ২০০০ সালে ভারতের বিপক্ষে। সেটা ছিলো বাংলাদেশ জাতীয় দলেরও টেস্টে অভিষেক।
দেখে নেওয়া যাক সংখ্যায় তার টেস্ট পরিসংখ্যান-
ম্যাচ- ৫০
রান- ৩০২৬
গড়- ৩০.৮৭
শতক- ৩ টি
অর্ধশতক- ২৪ টি
সর্বোচ্চ- ১১৩

সর্বশেষ মে ২০০৭ পর্যন্ত টেস্টে তিনিই ছিলেন একমাত্র বাংলাদেশি যার ব্যাটিং গড় ৩০ এর উপরে। টেস্টে ৩ শতক আর ২৪ টি অর্ধশতকও বাংলাদেশ ক্রিকেটে একটি রেকর্ড। টেস্টে তার সর্বোচ্চ ১১৩ রানের ইনিংসটি আসে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ২০০৪ এ।

হাবিবুল বাশার দলের অধিনায়কের দায়িত্বে ছিলেন জানুয়ারি ২০০৪ সাল থেকে জুন ২০০৭ পর্যন্ত। ২০০৫ সালে জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে প্রথম টেস্ট জয়ের স্বাদ পায় বাংলাদেশ দেশের মাটিতেই। সেই টেস্ট সিরিজও জয় করে বাংলাদেশ। শুধু এখানেই শেষ নয়,বাংলাদেশ ওডিআইতে প্রথম কোনো সিরিজ জয়ও পায় জিম্বাবুয়ের সাথে ২০০৫ সালে তার অধিনায়কত্বেই।

২০০৫ সালে বাংলাদেশ ওডিআইতে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে দিয়ে ক্রিকেটে দেশের নতুন দিগন্তের সূচনা করে। এপ্রিল ২০০৬ এ অস্ট্রেলিয়ার সাথে টেস্ট জয়টাও পেয়ে যেতো বাংলাদেশ। প্রথমে ১৫৮ রানের লিড পেয়েও শেষ পর্যন্ত ৩ উইকেটে ম্যাচটি হেরে যায় বাংলাদেশ।

তবে ২০০৭ সালের বিশ্বকাপ একেবারেই খারাপ কাটে বাশারের। ১৩.২ গড়ে ও সর্বোচ্চ ৩২ রান নিয়ে সেই বিশ্বকাপ শেষ করেন তিনি।

২০০৭ সালে বাশার ওডিআই ক্যাপ্টেন্সি ছেড়ে দেন নিজেই। তবে তিনি টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে খেলে যেতে চাচ্ছিলেন। কিন্তু ২ জুন ২০০৭ এ, বাশারকে টেস্ট অধিনায়কের পদ থেকে সরিয়ে আশরাফুলকে করা হয় অধিনায়ক।

২০০৯/১০ সেশন খেলে বাশার সব ধরণের ক্রিকেট থেকে অবসর নেন।

আজকে এই বাংলাদেশ ক্রিকেটের উজ্জ্বল নক্ষত্রের জন্মদিন। জন্মদিনে তার ভবিষ্যত ক্যারিয়ারের জন্য শুভকামনা রইলো।

সংবাদটি শেয়ার করুন

সংবাদটি পড়া হয়েছে 911 বার

যোগাযোগ

অফিসঃ-

উদ্যম-৬, লামাবাজার, সিলেট,

ফোনঃ 01727765557

voiceofsylhet19@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ

সম্পাদক মন্ডলি

ভয়েস অফ সিলেট ডটকম কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।