Voice of SYLHET | logo

৯ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২২শে জানুয়ারি, ২০২২ ইং

দুর্নীতি ঠেকাতে সিসিকের জন্ম নিবন্ধন শাখায় রদবদল!

প্রকাশিত : December 22, 2021, 07:47

দুর্নীতি ঠেকাতে সিসিকের জন্ম নিবন্ধন শাখায় রদবদল!

নিউজ ডেস্কঃ সিলেট সিটি কর্পোরেশনের (সিসিক) জন্ম-মৃত্যু সনদ বিতরণ শাখায় অনিয়ম ও জনভোগান্তির অভিযোগ ওঠার পর ওই শাখার দুই কর্মকর্তাকে অন্য শাখায় সরিয়ে নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি কর্তৃপক্ষ বলছে- আগামী ৭ দিনের ভেতরে জন্ম-মৃত্যু সনদ বিতরণ শাখা নতুনভাবে সেটআপ করা হবে। যাতে নগরবাসী সহজেই সেবা পান।

জানা গেছে, সম্প্রতি নগরভবনে জন্ম নিবন্ধনের সনদ উত্তোলন এবং সংশোধনের হার বেড়েছে। পাসপোর্ট তৈরি, বিয়ে, জমি রেজিস্ট্রেশন, শিশুদের করোনার টিকা এবং স্কুলে ভর্তিসহ ১৭টি সেবার ক্ষেত্রে জন্মসনদ বাধ্যতামূলক। এছাড়াও ১২ থেকে ১৮ বছরের শিশুদের করোনার টিকা কার্যক্রম শুরু হওয়ায় জন্ম নিবন্ধন সনদের প্রয়োজনীয়তা অপরিহার্য হয়ে পড়েছে। কিন্তু সিটি করপোরেশন থেকে এই সনদ সংগ্রহ করতে গিয়ে হয়রানির শিকার হচ্ছেন অভিভাবকরা। দিতে হচ্ছে বাড়তি টাকাও। জন্মসনদ সংশোধন করতে গিয়েও শিকার হতে হচ্ছে এমন ভোগান্তির।

অভিযোগ রয়েছে- জন্ম নিবন্ধন উত্তোলন ও সংশোধনকে কেন্দ্র করে নগরভবনে গড়ে উঠেছে দালালচক্র। যার ফলে ৫০ টাকা থেকে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত ঘুস লেনদেন হয় এ শাখায়। টাকা না দিলে ‘সার্ভার সচল নয়’ বলা হয়। কিন্তু টাকা দিলেই দ্রুততম সময়ের মধ্যে মেলে সেবা।এসব নিয়ে গত ১৭ ডিসেম্বর জাতীয় একটি দৈনিক সংবাদপত্রে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। উত্থাপিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সিসিকের জন্ম-মৃত্যু সনদ বিতরণ শাখায় কর্মরত তামান্না বেগম ও আমির আলীকে সরিয়ে নেওয়া হয় অন্য শাখায়। এ শাখার অভিযুক্ত আব্দুর রাজ্জাক, মো. নাসিম উদ্দিন ও সুলতানাসহ আরও কয়েকজনকে আগামী ৭ দিনের মধ্যে অন্য শাখায় সরিয়ে নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে সিসিকের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ও নিবন্ধক ডা. জাহিদুল ইসলাম মঙ্গলবার (২১ ডিসেম্বর) গণমাধ্যমে বলেন, ‘অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্টভাবে কেউ আমাদের কাছে অভিযোগ করেনি। বিভিন্ন মাধ্যমে পাওয়া অভিযোগের খানিকটা সত্যতা পেয়ে দুজনকে এ শাখা থেকে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। আগামী ৭ দিনের মধ্যে সিসিকের জন্ম-মৃত্যু সনদ বিতরণ শাখায় নতুন কর্মকর্তা-কর্মচারী দিয়ে নতুন সেটআপ দেওয়া হবে, যাতে নগরবাসী কোনো হয়রানি বা ভোগান্তির শিকার না হন এবং সহজেই সেবা পেয়ে যান।’

তিনি বলেন, ‘অনেকে নিজে থেকেই তাদের টাকা দিয়ে দ্রুত কাজ করাতে চান। এটাও অন্যায়। এ বিষয়ে সেবাগ্রহীতাদের সচেতন হতে হবে। জন্ম-মৃত্যু সনদ বিতরণ শাখায় আমি আমার ফোন নাম্বারসহ নোটিশ টানিয়ে রেখেছি- যদি কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারী টাকা দাবি করেন তবে যেন সরাসরি আমাকে ফোন করে জানান।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

সংবাদটি পড়া হয়েছে 78 বার

যোগাযোগ

অফিসঃ-

উদ্যম-৬, লামাবাজার, সিলেট,

ফোনঃ 01727765557

voiceofsylhet19@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ

সম্পাদক মন্ডলি

ভয়েস অফ সিলেট ডটকম কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।