Voice of SYLHET | logo

২২শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ | ৬ই জুলাই, ২০২২ ইং

ওমিক্রণ নিয়ে উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠা: ‌কভিড পরীক্ষা হচ্ছে না ওসমানী বিমানবন্দরে

প্রকাশিত : December 04, 2021, 23:18

ওমিক্রণ নিয়ে উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠা: ‌কভিড পরীক্ষা হচ্ছে না ওসমানী বিমানবন্দরে

নিউজ ডেস্কঃ ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ল্যাব না থাকায় বিভিন্ন দেশ থেকে আসা যাত্রীদের করোনা পরীক্ষা সম্ভব হচ্ছে না। দেশের প্রবাসী অধ্যুষিত অঞ্চল বলা হয় সিলেটকে। এ অঞ্চলে প্রবাসীদের আনাগোনাও বেশি। ইতোমধ্যে সাউথ আফ্রিকা থেকে বেশ কয়েকজন সিলেটে এসে পৌঁছেছেন। ফলে দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ‘ওমিক্রন’ নিয়ে উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠা দেখা দিয়েছে প্রবাসী অধ্যুষিত এ অঞ্চলে।

এর মধ্যে সুনামগঞ্জে তিনজনের করোনা শনাক্ত করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। যত দ্রুত সম্ভব (বৃহস্পতিবার রাতে বা শুক্রবারে) তাদের নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন সিলেট বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক হিমাংশু লাল রায়।

তিনি জানান, সাউথ আফ্রিকা ফেরত ব্যক্তিরা গা ডাকা দিয়েছেন। এটা আমাদের জন্য সবচেয়ে ঝুঁকির বিষয়। আতঙ্কিত না হয়ে বা আত্মগোপনে না থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দ্রুত পরীক্ষার জন্য নমুনা দিয়ে নিজে ও পরিবার-পরিজন, দেশবাসীকে নিরাপদ রাখতে তাদের প্রতি আহ্বান জানান ডা. হিমাংশু লাল রায়।তাদের অধিকাংশই সিলেট এমএজি ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ব্যবহার করেছেন। যদিও সিলেটের সঙ্গে আফ্রিকার দেশগুলোর সরাসরি কোনো ফ্লাইট চালু নেই জানিয়ে কিছুটা স্বস্তি প্রকাশ করেছে সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ ও স্বাস্থ্য বিভাগ। এরপরও বিমানবন্দরে আসা যাত্রীদের তথ্য যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে।

সম্প্রতি তাদের আফ্রিকার কোনো দেশে যাতায়াত আছে কিনা, সে বিষয়ও যাচাই করা হচ্ছে। ওমিক্রন ঠেকাতে সতর্কতার অংশ হিসাবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ১৫ দফা নির্দেশনা পালন করা হচ্ছে।

তবে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ১০ ডিসেম্বর থেকে আগামী বছর ১০ জুন পর্যন্ত রাতে ৮ ঘণ্টা সব ধরনের উড়োজাহাজ চলাচল বন্ধ থাকবে। নির্মাণাধীন থার্ড টার্মিনালের কাজের জন্য রাত ১২টা থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত কোনো ফ্লাইট ছাড়বে না বা নামবে না। ওই সময় কোনো এয়ারলাইন্সের ইমার্জেন্সি ল্যান্ডিংয়ের প্রয়োজন হলে, সে ক্ষেত্রে সিলেট আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ব্যবহার করা হবে বলে জানিয়েছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ।এজন্য দ্রুততম সময়ের মধ্যে সিলেট এমএজি ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আরটি-পিসিআর ল্যাব স্থাপনের দাবি জানিয়েছেন সিলেট মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাস্ট্রিজের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট আব্দুল জব্বার জলিল।
তিনি বলেন, সরকারের সদিচ্ছা থাকা সত্ত্বেও আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় এতদিনেও ওসমানী বিমানবন্দরে আরটি-পিসিআর ল্যাব স্থাপন হয়নি, যা অত্যন্ত দুঃখজনক।

সিলেট স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্র জানায়, বিমানবন্দরে বিদেশ ফেরত যাত্রীদের করোনা পরীক্ষার জন্য আরটি-পিসিআর ল্যাব স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। স্বাস্থ্য বিভাগের দল জায়গা নির্ধারণ করে একটি প্রস্তাব স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে। তবে কবে নাগাদ করোনা পরীক্ষার যন্ত্র এ বিমানবন্দরে স্থাপন করা হবে, তা জানানো হয়নি।

বিমানবন্দর ব্যবস্থাপক হাফিজ উদ্দিন আহমদ বলেন, সিলেটের সঙ্গে আফ্রিকার দেশগুলোর সরাসরি কোনো ফ্লাইট নেই। ওমিক্রন ঠেকাতে আমরা স্বাস্থ্য বিভাগকে সহযোগিতা করছি। তৃতীয় কোনো দেশ থেকে আফ্রিকায় ভ্রমণ করা কোনো যাত্রী দেশে এলে আমরা স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী সহযোগিতা করব।

সিলেট জেলার ডেপুটি সিভিল সার্জন জন্মেজয় দত্ত বলেন, ওমিক্রন ঠেকাতে আফ্রিকার দেশগুলো থেকে সিলেটে আসা যাত্রীদের বাধ্যতামূলক ১৪ দিন সঙ্গনিরোধসহ সব নির্দেশনা মেনে চলার কথা বলা হয়েছে। যদিও সিলেটের সঙ্গে আফ্রিকার দেশগুলোর সরাসরি কোনো ফ্লাইট নেই। কিন্তু তৃতীয় কোনো দেশ হয়ে সিলেটে আসছেন কিনা, সেটি পর্যালোচনা করে দেখা হচ্ছে।

জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের অধীনে বিমানবন্দরে কর্মরত স্বাস্থ্যবিষয়ক দলের তত্ত্বাবধায়ক এবং সিলেট সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আহমদ সিরাজুম মুনির বলেন, বিমানবন্দরে করোনা ল্যাবরেটরি নেই। স্বাস্থ্য বিভাগ চাইলেই পরীক্ষাগার স্থাপন করতে পারবে না। এখানে কয়েকটি মন্ত্রণালয় আছে। ল্যাবরেটরি স্থাপনের জন্য জায়গা নির্ধারণ করে সে সংক্রান্ত প্রস্তাব মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। আশা করা হচ্ছে, শিগগিরই বিমানবন্দরে পরীক্ষাগার স্থাপন করা হবে।

সিলেট বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক হিমাংশু লাল রায় বলেন, দুই মাসে আফ্রিকা থেকে ২৪০ জন যাত্রী দেশে ফিরেছেন। কিন্তু ওইসব যাত্রীর কোনো তথ্য সিভিল অ্যাভিয়েশনের কাছে নেই। এমন অবস্থার মধ্যে আমরা যাচ্ছি। ওমিক্রন দেশে মাত্র দুটি প্রতিষ্ঠান শনাক্ত করতে পারে। এছাড়া আক্রান্ত রোগীর উপসর্গ ও হিস্ট্রি দেখে নতুন ধরন কিনা- সেটি জানা যাবে। আমরা প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়কে ল্যাব বসানোর প্রয়োজনীয়তাসহ সবকিছু জানিয়ে চিঠি দিয়েছি। বিমানবন্দরে জায়গা পরিদর্শন করা হয়েছে। আশা করছি, তারা দ্রুত ল্যাব স্থাপনের ব্যবস্থা করবেন।-যুগান্তর

সংবাদটি শেয়ার করুন

সংবাদটি পড়া হয়েছে 147 বার

যোগাযোগ

অফিসঃ-

উদ্যম-৬, লামাবাজার, সিলেট,

ফোনঃ 01727765557

voiceofsylhet19@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ

সম্পাদক মন্ডলি

ভয়েস অফ সিলেট ডটকম কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।