Voice of SYLHET | logo

১১ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ২৪শে জানুয়ারি, ২০২২ ইং

হাবিপ্রবি মেডিকেল সেন্টারের সম্প্রসারণ কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন

প্রকাশিত : August 01, 2019, 13:25

হাবিপ্রবি মেডিকেল সেন্টারের সম্প্রসারণ কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন

হাবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ

প্রায় চার কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হতে যাচ্ছে দিনাজপুরের হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারের সম্প্রসারিত ভবন। প্রাথমিক ভাবে প্রায় এক কোটি দশ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত হবে প্রথম তলার কাজ। পরে অন্য প্রজেক্টের মাধ্যমে বাকি কাজ সম্পাদন করা হবে বলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ।

সম্প্রসারণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের সময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম, কোষাধাক্ষ্য প্রফেসর ড. বিধান চন্দ্র হালদার, রেজিস্ট্রার প্রফেসর ডা. মোঃ ফজলুল হক, প্রক্টর প্রফেসর ড. মোঃ খালেদ হোসেন, হিসাব শাখার পরিচালক প্রফেসর ড. মোঃ শাহাদৎ হোসেন খান , হাবিপ্রবি মেডিকেল সেন্টারের চিকিৎসক,কর্মকর্তা, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের হাবিপ্রবি শাখার নেতৃবৃন্দ সহ হাবিপ্রবির কর্মচারীববৃন্দ।

এসময় শিক্ষার্থীদের মধ্যে থেকে ছাত্রলীগ নেতা মোরশেদুল আলম রনি বলেন, ” আমরা চাই মেডিকেল সেন্টারটি পাঁচতলা বিশিষ্ট হোক। এছাড়া সাধারণ শিক্ষার্থীদের প্রাথমিক চিকিৎসার জন্যে যে ফাস্ট এইড গুলি দরকার যেগুলো এখানে নেই। সাধারণ শিক্ষার্থীদের অনেক দিনের চাওয়া এই ফাস্ট এইড গুলি যেন এবার মেডিকেল সেন্টারে সংযুক্ত করা হয়। এতে করে আমরা সকলেই অনেক উপকৃত হবো “।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর ডা. মোঃ ফজলুল হক বলেন, ” আমিও ব্যক্তিগতভাবে চাই সম্প্রসারিত মেডিকেল সেন্টারটি পাঁচতলা বিশিষ্ট হোক। কারণ দিন দিন দেশে ভূমির পরিমান কমে যাচ্ছে। আর প্রযুক্তির যেহেতু উন্নতি হচ্ছে তাই পরে সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি করতে এখনি সময় পাঁচ তলার ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা। এজন্যে তিনি এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের হস্তক্ষেপ কামনা করেন “।

অন্যদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মু. আবুল কাসেম বলেন, ” যদি সরকারি কোনো জটিলটা না থাকে তবে মেডিকেল সেন্টারটি পাঁচতলা করার লক্ষ্যে সব কাজ করা হবে “। মেডিকেল সেন্টারটিতে অপারেশন থিয়েটার থেকে শুরু করে মেয়ে ও ছেলে শিক্ষার্থীদের জন্য পৃথক ওয়ার্ড এছাড়া শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য থাকছে পৃথক ওয়ার্ডের ব্যবস্থা। তিনি বলেন ক্রমবর্ধমান শিক্ষার্থীদের চাপের কথা বিবেচনা করে তাদের ভোগান্তি কমাতে এই উদ্যোগ নেয়া। ভবনের কাজ শেষ হলে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের সংখ্যা বাড়ানো সহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করা হবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য যে, বর্তমান মেডিকেল সেন্টারে মাত্র দশটি বেড থাকলেও নতুন সম্প্রসারিত মেডিকেল সেন্টারে বেড সংখ্যা বৃদ্ধির পাশাপাশি যুক্ত হবে অত্যাধুনিক চিকিংসা ব্যবস্থা। এছাড়া শিক্ষার্থীদের চোখ ও দাঁতের সমস্যা সমাধানের জন্য থাকবে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক।

সংবাদটি শেয়ার করুন

সংবাদটি পড়া হয়েছে 568 বার

যোগাযোগ

অফিসঃ-

উদ্যম-৬, লামাবাজার, সিলেট,

ফোনঃ 01727765557

voiceofsylhet19@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ

সম্পাদক মন্ডলি

ভয়েস অফ সিলেট ডটকম কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।