Voice of SYLHET | logo

২১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ | ৪ঠা জুন, ২০২৩ ইং

সত্য গোপনের জন্য কাজলকে হেনস্তা করা হচ্ছে : এইচআরএফবি

প্রকাশিত : May 04, 2020, 22:31

সত্য গোপনের জন্য কাজলকে হেনস্তা করা হচ্ছে : এইচআরএফবি

নিউজ ডেস্ক:-

প্রকৃত সত্য গোপনের জন্য ফটোসাংবাদিক কাজলকে হেনস্তা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে হিউম্যান রাইটস ফোরাম বাংলাদেশ (এইচআরএফবি)। একই সঙ্গে কাজলকে জেলহাজতে পাঠানোয় নিন্দা জানিয়ে সংগঠনটি দ্রুত তার মুক্তি দাবি করেছে। সোমবার (৪ মে) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ অভিযোগ ও নিন্দা প্রকাশ করা হয়।
এতে বলা হয়েছে, ৫৪ দিন নিখোঁজ থাকার পর অবশেষে খোঁজ মিলল চিত্র সাংবাদিক কাজলের। এতদিন পর খোঁজ পাওয়ার পর তার অপহরণের সত্য উদঘাটনের চেষ্টা না করে, বরং তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। তাকে হাতকড়া পরিয়ে আদালতে আনা হয়েছে এবং তিনি মামলায় জামিন পেলে অন্য মামলায় তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। হিউম্যান রাইটস ফোরাম বাংলাদেশ মনে করে, প্রকৃত সত্য গোপনের জন্য তাকে এভাবে হেনস্তা করা হচ্ছে

বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে, এইচআরএফবি এ প্রচেষ্টার তীব্র নিন্দা এবং অনতিবিলম্বে কাজলকে মুক্তি প্রদানের জন্য দাবি জানাচ্ছে। পাশাপাশি নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে এর সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানাচ্ছে।
সাংবাদিক কাজলকে জীবিত ফিরে পাওয়ায় ফোরাম স্বস্তি প্রকাশ করছে উল্লেখ করে বলা হয়েছে, এইচআরএফবি উল্লেখ করতে চায়, তার বিরুদ্ধে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশের যে মামলা দেয়া হয়েছে এবং পরে অন্য মামলায় জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে, তা অসঙ্গতিমূলক, বিশ্বাসজনক নয় এবং সর্বোপরি অত্যন্ত উদ্বেগজনক। ফোরাম মনে করছে, তাকে হয়রানি করার জন্য ও প্রকৃত সত্য আড়াল করার জন্য এ ধরনের গল্প সামনে নিয়ে আসা হচ্ছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ফৌজদারি কার্যবিধির ৫৪ ধারায় তাকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে, যা এ-সংক্রান্ত উচ্চ আদালতের নির্দেশনার সঙ্গে সামঞ্জস্য নয়। এতদিন পর ফিরে আসায় সাংবাদিক কাজলের অপহরণের পেছনে কারা জড়িত ছিল তা খুঁজে বের করে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ জরুরি। অথচ কাজল যেন কোনোরূপ ভয়ভীতি ছাড়া কথা বলতে পারেন, সে পরিবেশ নিশ্চিত না করে তাকে নানাভাবে হেনস্তা করা হচ্ছে।
‘সাংবাদিক কাজলকে হাতকড়া পরিয়ে আদালতে আনা হয়, তা অত্যন্ত নিন্দনীয় ও গর্হিত। আবার প্রাথমিকভাবে তাকে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। কিন্তু জেলে এ ধরনের কোয়ারেন্টাইনে রাখার পর্যাপ্ত ব্যবস্থা আছে কি-না তা নিয়েও আমাদের সংশয় রয়েছে’ বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করেছে এইচআরএফবি।

কাজলের স্বাস্থ্য চরম ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে উল্লেখ করে বলা হয়েছে, ফোরাম অনতিবিলম্বে কাজলকে মুক্তি এবং তার অপহরণের প্রকৃত সত্য উদঘাটন করে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাচ্ছে। অন্যান্য গুম বা অপহরণের ঘটনার ন্যায় এক্ষেত্রেও যেন সত্য চাপা পড়ে না যায়, এ দায়হীনতার সংস্কৃতির অবসান ঘটানোর জন্য সরকারের কাছে ফোরাম আহ্বান জানায়।
এতে আরও বলা হয়, গত ১০ মার্চ সন্ধ্যায় রাজধানীর হাতিরপুলের ‘পক্ষকাল’র অফিস থেকে বের হন সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজল। এ সময় পুলিশ মামলা নেয়ার ক্ষেত্রে নানা টালবাহানা করে। কাজলের পরিবার এফআইআর দাখিল করতে চাইলেও পুলিশ তা নেয়নি। কেবল আদালতের নির্দেশনার পর চকবাজার থানায় সাধারণ ডায়েরি করতে পারেন তার স্ত্রী। এর পরের সময়টিতে তাকে উদ্ধারে পুলিশ প্রশাসনের কোনো তৎপরতা কিংবা সুস্পষ্ট বক্তব্য দৃশ্যমান ছিল না।
‘৩ মে ভোর ৩টার দিকে পরিবার জানতে পারে, তিনি এখন বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশের হেফাজতে। কাজলের ছেলে তাকে আনতে বেনাপোল গেলে জানা যায়, কাজলকে ভারত থেকে অবৈধভাবে দেশে অনুপ্রবেশের দায়ে গ্রেফতার করা হয়েছে। পরবর্তী সময়ে বিজিবির করা এ মামলায় জামিন পান কাজল। তবে যশোর কোতোয়ালি থানায় তার নামে দায়ের করা অপর একটি মামলার কারণে আদালত তাকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন

সংবাদটি শেয়ার করুন

সংবাদটি পড়া হয়েছে 240 বার

যোগাযোগ

অফিসঃ-

উদ্যম-৬, লামাবাজার, সিলেট,

ফোনঃ 01727765557

voiceofsylhet19@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ

সম্পাদক মন্ডলি

ভয়েস অফ সিলেট ডটকম কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।