Voice of SYLHET | logo

৬ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ | ১৯শে জানুয়ারি, ২০২২ ইং

মিন্নির পক্ষে বিনা খরচে লড়তে চান সেই ঐশীর আইনজীবী

প্রকাশিত : July 18, 2019, 19:49

মিন্নির পক্ষে বিনা খরচে লড়তে চান সেই ঐশীর আইনজীবী

বহুল আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলায় গ্রেফতার নিহতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির পক্ষে বুধবার (১৮ জুলাই) আদালতে কোনো আইনজীবী ছিলেন না। এদিন তার পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

মিন্নির পক্ষে কোনো আইনজীবী না দাঁড়ানোর খবরে ফেসবুকসহ বিভিন্ন মাধ্যমে দেশজুড়ে আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়। বলা হচ্ছে, মিন্নি যদি অপরাধীও হন, তারপরও তার আইনি সহায়তা পাওয়ার অধিকার রয়েছে।

এমন আলোচনা-সমালোচনার মধ্যেই মিন্নির পক্ষে মামলা পরিচালনার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন আইনজীবী ফারুক আহম্মেদ। তিনি বর্তমানে ফেনীতে মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যাকাণ্ডের একটি মামলায় গ্রেফতার সোনাগাজী থানার সাবেক ওসি মোয়াজ্জেম হোসেনের পক্ষে মামলা পরিচালনা করছেন। এর আগে তিনি পুলিশ দম্পতি হত্যা মামলার আসামি ঐশী, রমনা বটমূলে বোমা হামলা মামলা, বিডিআর বিদ্রোহ মামলা, গুলশানে হলি আর্টিজান হামলার মামলাসহ বেশ কিছু আলোচিত মামলার আসামিপক্ষের আইনজীবী ছিলেন।

আইনজীবী ফারুক আহম্মেদ মিন্নির পক্ষে বিনা খরচে আইনি সহায়তা দিতে ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।

ফারুক আহম্মেদ বলেন, মিন্নির পরিবার চাইলে আমি তার পক্ষে দাঁড়াতে চায়। ফারুক অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটস সব সময় নির্যাতিত, অসহায় ও অসচ্ছল পরিবারের পক্ষে ন্যায়বিচারের জন্য মামলা পরিচালনা করে থাকে।

তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, আমরা ঢাকা থেকে মিন্নির জন্য মামলা পরিচালনা করব। এ জন্য মিন্নির পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছি। আমরা তাকে লিগ্যাল এইড (বিনা পয়সায় মামলা পরিচালনা) দেব।

বুধবার বিকালে বরগুনার সিনিয়র জুডিশিয়াল আদালতে হাজির করা হয় রিফাত শরীফ হত্যা মামলার প্রধান সাক্ষী তার স্ত্রী মিন্নিকে। এদিন আদালতে মিন্নির পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিল না। আদালতে উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি সঞ্জিব দাস। তিনি আদালতকে জানান, এ ঘটনায় আইনজীবীদের কেউ আসামিদের পক্ষে নিয়োগ না হওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ফলে মিন্নির পক্ষে আদালতে কোনো আইনজীবী ছিলেন না।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) মিন্নিকে নিজ বাড়ি থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ লাইনে নেওয়া হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে গ্রেফতার দেখায় পুলিশ।

বরগুনা সরকারি কলেজের মূল ফটকের সামনের রাস্তায় ২৬ জুন সকাল ১০টার দিকে স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নির সামনে কুপিয়ে জখম করা হয় রিফাত শরীফকে। ওই দিনই বিকাল ৪টায় বরিশালের শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

এ হত্যার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে দেশব্যাপী তোলপাড় শুরু হয়। পরে দ্বিতীয় একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে হত্যায় মিন্নির সম্পৃক্ততা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে।

২৭ জুন রিফাত শরীফের বাবা আবদুল হালিম দুলাল শরীফ বরগুনা থানায় ১২ জনের নামে এবং চার-পাঁচজনকে অজ্ঞাত আসামি করে মামলা করেন। প্রধান আসামি নয়ন বন্ড ২ জুলাই ভোরে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হন।

 

সংবাদটি শেয়ার করুন

সংবাদটি পড়া হয়েছে 1043 বার

যোগাযোগ

অফিসঃ-

উদ্যম-৬, লামাবাজার, সিলেট,

ফোনঃ 01727765557

voiceofsylhet19@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ

সম্পাদক মন্ডলি

ভয়েস অফ সিলেট ডটকম কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।