শনিবার (১৩ মার্চ) সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের কর্মীসভায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে দেয়ার সময় তিনি এ কথা বলেন।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়ের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় লেখকের বক্তব্যের শুরুতে সিলেট-৩ আসনের সাংসদ মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী এমপির স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

কর্মীসভায় লেখক বলেন, ‘আপনারা সিলেট ছাত্রলীগ আমাদের অনেক দিয়েছেন। এখন আমাদের দেবার পালা। আমরা যে কমিটি দেব সেই কমিটির নেতৃত্বে আপনারা কাজ করবেন।’

এর আগে সিলেটে আয়োজিত কর্মীসভায় যোগ দিতে শনিবার বেলা ১২ টা ৫০ মিনিটে বিমানের একটি ফ্লাইটে সিলেটে এসে পৌঁছান তাঁরা।

পরে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতারা হযরত শাহজালাল (রহ.) ও হযরহ শাহপরাণ (রহ.) মাজার জিয়ারত করে সিলেট সার্কিট হাউজে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা দুপুরে খাবার খেয়ে নির্ধারিত সময়ের প্রায় দুঘণ্টা পর সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের সম্মেলনস্থল কবি নজরুল অডিটোরিয়ামে এসে পৌঁছানন।

বিকেল ৪ টা ১০ মিনিটের দিকে তাঁরা সম্মেলনস্থলে এসে পৌঁছালে অপেক্ষমাণ নেতাকর্মীরা তাদের স্বাগত জানান। এসময় জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু স্লোগানে মুখরিত হয়ে উঠে অডিটোরিয়াম এলাকা।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের অক্টোবরে সাংগঠনিক কার্যক্রমে নিষ্ক্রিয়তা ও শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ এনে সিলেট জেলা কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। একই অভিযোগে ২০১৮ সালের অক্টোবরে সিলেট মহানগর কমিটি বিলুপ্ত করা হয়। এরপর কয়েকবছর পেরিয়ে গেলেও কমিটি হয়নি