Voice of SYLHET | logo

২১শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ৫ই মার্চ, ২০২১ ইং

সিলেটে ১৫ দিনে ১৩ খুন

প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ০৮, ২০২১, ১৮:৫৫

সিলেটে ১৫ দিনে ১৩ খুন

নিউজ ডেস্কঃ সিলেটে বেড়েছে রোমহর্ষক খুনের ঘটনা। খুনের পর লাশ রাখা হচ্ছে শয়নকক্ষে, রাস্তায়, বস্তার ভেতর, ড্রেনে কিংবা ডাস্টবিনে।

পুলিশ বলছে, ব্যক্তিগত ও পারিবারিক দ্বন্দ্বই অধিকাংশ খুনের ঘটনার কারণ। এরমধ্যে অনৈতিক সম্পর্ক, পৈত্রিক ভিটা, জমিতে সেচ, পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধের জের ধরে এই খুনের ঘটনা ঘটেছে। এসব হত্যাকাণ্ডের অনেকটির ক্লু এখনও উদঘাটন হয়নি।
পরিসংখ্যান বলছে, ১ ফেব্রুয়ারী থেকে ৬ ফেব্রুয়ারী এই ছয়দিনে সিলেট বিভাগে ৮টি খুনের ঘটনা ঘটেছে। এরমধ্যে সিলেট জেলায় ২টি, সুনামগঞ্জে ৩টি, হবিগঞ্জে ২টি এবং মৌলভীবাজারে ১ জন খুন হন। নিহতদের মধ্যে দিনমজুর, কৃষক, প্রবাসী, গৃহবধূ, কিশোর ও চিকিৎসক রয়েছেন। এছাড়া গত জানুয়ারী মাসে সিলেট বিভাগে অন্তত ১৫টি খুনের ঘটনা ঘটেছে।
শনিবার (৬ ফেব্রুয়ারী) সকালে জগন্নাথপুর উপজেলায় পারিবারিক কলহের জেরে দ্বিতীয় স্ত্রী’র লাঠির আঘাতে স্বামী খুন হয়েছেন। নিহতের নাম মো. আলেক মিয়া (৬৫)। তিনি উপজেলার পাইলগাও ইউনিয়নের আমিনপুর গ্রামের মৃত মাছিম উল্ল্যাহর ছেলে। তিনি পেশায় একজন দিনমজুর।
নিহত আলেক মিয়ার প্রথম স্ত্রীর ঘরে ৩ মেয়ে ও ২ ছেলে থাকলেও দ্বিতীয় স্ত্রীর কোন সন্তান নেই। তিনি থাকতেন দ্বিতীয় স্ত্রীর সাথে। এ ঘটনায় ঘাতক দ্বিতীয় স্ত্রী পলাতক রয়েছে।
শুক্রবার (৫ ফেব্রুয়ারী) ঘরে ঢুকে জাকিয়া খাতুন (৬৫) নামে এক গৃহবধূকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। ওই সন্ধ্যা রাত সাড়ে ৭টায় হবিগঞ্জে বানিয়াচং উপজেলার ৩নং দক্ষিণ-পূর্ব ইউনিয়নের চৌধুরীপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত জাকিয়া খাতুন ওই এলাকার মৃত হান্নান ঠাকুরের স্ত্রী। তবে কে বা কারা কি কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে তা এখনও জানা যায়নি।
একই দিন ক্ষেতের জমিতে পানি সেচ নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের ফিকলের (দেশীয় অস্ত্র) আঘাতে জামাল মিয়া (৩৫) নামের এক কৃষক মারা যান। ওইদিন দুপুর ১টায় বহুবল উপজেলার স্নানঘাট ইউনিয়নের ফতেহপুর গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে। নিহত যুবক উপজেলার ফতেহপুর গ্রামের গেদু মিয়ার ছেলে।
বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যায় সিলেট সদরে ছুরিকাঘাতে রাজু দাস (২২) নামের এক যুবক খুন হন। তিনি জালালাবাদ থানাধীন হালদারপাড়া মজুমদার পল্লীর দুলাল চন্দ্র দাসের ছেলে।
পুলিশ জানিয়েছে, মোবাইল বিক্রির পাওনা ২০০ টাকার বিরোধের জের ধরে রাজুকে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় সজল নামের একজনকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।
ওইদিন সুনামগঞ্জে পারিবারিক ঝগড়াকে কেন্দ্র করে বড় ভাইয়ের বল্লমের আঘাতে ছোট ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে। নিহতের নাম পারভেজ মিয়া (৩৮)। তিনি ওই এলাকার মৃত লিলু মিয়ার ছেলে। ঘটনাটি ঘটে ছাতক উপজেলার কালারুকা ইউনিয়নের জামুরাইল গ্রামে।
মঙ্গলবার (২ ফেব্রুয়ারী) পৈত্রিক ভিটেজমি নিয়ে বিরোধের জেরে চাচাতো ভাইয়ের হাতে এক সৌদি আরব প্রবাসী খুন হয়েছেন। নিহত প্রবাসীর নাম শামীম আহমদ। ওইদিন দুপুরের মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় উপজেলার রাউৎগাঁও ইউনিয়নের মুকন্দপুর গ্রামে এই ঘটনাটি ঘটে। তিনি ওই এলাকার মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে।
সোমবার (১ ফেব্রুয়ারী) সিলেট নগরীতে এক পল্লী চিকিৎসকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ওইদিন দুপুর ১২টায় লালবাজারস্থ মোহাম্মদীয়া আবাসিক হোটেলের পেছন থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তবে এ হত্যাকাণ্ডের ক্লু এখনও উদ্ঘাটন করতে পারেনি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।
নিহত চিকিৎসকের নাম রেজাউল করিম হায়াত (৫০)। তার বাড়ি সিলেটের সীমান্তবর্তী কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার কালাছাদেক গ্রামে। এ ঘটনায় ২ জনকে সন্দিগ্ধ আসামী হিসেবে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।
এছাড়া জানুয়ারী মাসে আরো বেশ কয়েকটি হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারী) সিলেটের গোয়াইনঘাটে সন্ত্রাসী হামলায় এক যুবক মারা যান। নিহত আশিকুর রহমান (২৪) উপজেলার হাতিরখাল গ্রামের ফখর উদ্দিনের ছেলে।
ওইদিন জৈন্তাপুর বড়গাং নদীর থেকে রক্ত মাখা ভেনেটি ব্যাগের ভিতর থেকে এক নবজাতক শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
বুধবার (২৭ জানুয়ারী) সিলেটের বিয়ানীবাজারের গজারাই দিঘীরপার এলাকার হাওর থেকে অর্ধদগ্ধ এক অজ্ঞাত নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। মরদেহটির ৭০ ভাগই অগ্নিদগ্ধ। এ হত্যাকাণ্ডের ক্লু এখনো উদঘাটন করতে পারেনি পুলিশ।
শনিবার (২১ জানুয়ারী) ওসমানীনগরে এক বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত কালু মিয়া (৬৫) বালাগঞ্জ থানার শিওরখাল গ্রামের বাসিন্দা। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে বাদী অজ্ঞাতনামা আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করেন।
মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারী) শহরতলীর খাদিমনগর এলাকায় পূর্ব বিরোধের জের ধরে নাইম আহমদ (২০) নামের এক যুবককে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়েছে। সে শাহপরাণ থানাধীন মোহাম্মদপুর এলাকার নিজাম উদ্দিনের ছেলে। ওইদিন দুপুর আড়াইটার দিকে বিআইডিসি এলাকার কৃষি গবেষণাঘারের লেকের পাশে এ ঘটনাটি ঘটে।
অপর দিকে, সুনামগঞ্জের ছাতকে পাওনাদারের টাকা পরিশোধ করতে না পারায় শামছুল হক নামের এক ব্যক্তি আত্মহত্যা করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে ২৭ জানুয়ারী উপজেলার কালারুকা ইউনিয়নের আকুপুর গ্রামে। শামছুল হক ওই গ্রামের মৃত সোনাহর আলীর পুত্র।
সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি কার্যালয়ের পুলিশ সুপার (অপরাধ) মো. জেদান আল মূছা বলেন, খুনের ঘটনা বাড়ার পেছনে বেশ কিছু কারণ থাকতে পারে। পারিবারিক ও সামাজিক বন্ধন দৃঢ় হলে একটা মানুষ খারাপ কাজ করতে একটু ভাবে। আর এটি দুর্বল হয়ে পড়লে মানুষের মনে নিষ্ঠুরতার মাত্রা বেড়ে যায়। তিনি বলেন, যেসব খুনের ঘটনা ঘটছে পুলিশ তা তদন্ত করে অপরাধীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসছে।

দৈনিক জালালাবাদ

সংবাদটি শেয়ার করুন

সংবাদটি পড়া হয়েছে 56 বার

যোগাযোগ

অফিসঃ-

উদ্যম-৬, লামাবাজার, সিলেট,

ফোনঃ 01727765557

voiceofsylhet19@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ

সম্পাদক মন্ডলি

ভয়েস অফ সিলেট ডটকম কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।

Design & Developed By : amdads.website