Voice of SYLHET | logo

৩০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ | ১৪ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

ওয়াসার পানি সুপেয় নয়: হাইকোর্টে

প্রকাশিত : ডিসেম্বর ০৩, ২০১৯, ০৮:৫০

ওয়াসার পানি সুপেয় নয়: হাইকোর্টে

নিউজডেস্কঃ

রাজধানীতে সরবরাহ করা ওয়াসার পানি সুপেয়, দাবি করে সংস্থাটির দেওয়া বক্তব্য অসত্য বলে হাইকোর্টে বিশেষজ্ঞ প্রতিবেদন দাখিল করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। আদালতের নির্দেশনা পেয়ে ওয়াসার পানি পরীক্ষা করে সোমবার (২ ডিসেম্বর) হাইকোর্টে বিশেষজ্ঞ কমিটির এ প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। পরে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নুর-উস সাদিক বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেন।

তিন সদস্যের বিশেষজ্ঞ কমিটিতে ছিলেন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. জহিরুল ইসলাম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি ডিপার্টমেন্টের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. সাবিতা রেজওয়ানা রহমান এবং বুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. এবিএম বদরুজ্জামান।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উপ-সচিব মোহাম্মদ সাঈদ উর রহমানের স্বাক্ষরিত বিশেষজ্ঞ কমিটির প্রতিবেদনে বলা হয়, ওয়াসার পানি সুপেয়, সংস্থাটির এমন দাবি অসত্য। ওয়াসার পানিতে মিলেছে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া ও মলের জীবাণু।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাজধানীতে ওয়াসা ও দুই সিটি করপোরেশন সমন্বিতভাবে কাজ করলে ওয়াসার লাইন ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে ব্যাকটেরিয়া কিংবা জীবাণু ঢুকতো না।

এদিকে রাজধানীবাসীর জন্য সুপেয় পানি নিশ্চিতে প্রতিবেদনে চারটি সুপারিশ করা হয়েছে। এগুলো হলো-

১. পানিতে দূষণ বা জীবাণুর সংক্রমণ ঠেকাতে ঢাকা ওয়াসার পানি সরবরাহ লাইনগুলোর মেরামত ও লাইনগুলোর আধুনিকায়ন জরুরি। এ জন্য ওয়াসাকে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কপোরেশনের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করতে হবে।

২. ঢাকা শহরে সরবরা করা পানির মান যাচাই ও মনিটরিং করার জন্য তৃতীয় কোনও পক্ষের মাধ্যমে ক্যাম্পেইন চালু করতে হবে। এছাড়া এ ক্যাম্পেইনের জন্য আর্থিক ও প্রযুক্তিগত সহায়তা নিশ্চিত করতে হবে। বছরজুড়ে এ ক্যাম্পেইন অব্যাহত রাখতে হবে।

৩. ভোক্তাদের মধ্যে সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন চালাতে হবে, যাতে তারা বাসা-বাড়িতে থাকা পানির ট্যাংক ও হাউসগুলো পরিষ্কার রাখে।

৪. সুপেয় পানির নিরাপদ সরবরাহ ও তা দূষণমুক্ত রাখতে অবৈধ পানির সংযোগ বন্ধ করতে হবে।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নুর-উস সাদিক বলেন, প্রতিবেদনটির ওপর চলতি সপ্তাহে বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে শুনানি হতে পারে।

প্রসঙ্গত, গত জুলাই মাসে হাইকোর্টের নির্দেশে গঠিত কমিটি আদালতে দাখিল করা প্রতিবেদনে ঢাকা ওয়াসার ১০টি মডস জোনের মধ্যে চারটি জোন এবং সায়েদাবাদ ও চাঁদনিঘাট এলাকা থেকে সংগৃহীত পানির ৮টি নমুনায় দূষণ পেয়েছে বলে আদালতকে জানান। এইসব এলাকার পানিতে ব্যাকটেরিয়া, উচ্চ মাত্রার অ্যামোনিয়া পাওয়া গেছে বলে প্রতিবেদনে তুলে ধরা হয়। এছাড়াও কিছু কিছু নমুনাতে মলের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে বলেও প্রতিবেদনে বলা হয়।

তবে ওই প্রতিবেদনের তথ্য পুরোপুরি অস্বীকার করে ওয়াসা কর্তৃপক্ষ। এর ধারাবাহিকতায় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অধীনে একটি বিশেষজ্ঞ কমিটিকে পানি পরীক্ষায় দায়িত্ব দেন হাইকোর্ট। বিশেষজ্ঞ কমিটির নতুন প্রতিবেদনেও ওয়াসার পানিতে দূষণের তথ্য উঠে এলো।

সংবাদটি শেয়ার করুন

সংবাদটি পড়া হয়েছে 37 বার

যোগাযোগ

অফিসঃ-

উদ্যম-৬, লামাবাজার, সিলেট,

ফোনঃ 01727765557

voiceofsylhet19@gmail.com

সামাজিক যোগাযোগ

সম্পাদক মন্ডলি

ভয়েস অফ সিলেট ডটকম কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। অনুমতি ছাড়া এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি ও বিষয়বস্তু অন্য কোথাও প্রকাশ করা বেআইনি।

Design & Developed By : amdads.website